ঢাকা, রোববার   ২২ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ৮ ১৪২৯

আজ জিতলে ইতিহাসে লেখা হবে বাংলাদেশের `আফ্রিকা` বিজয়ের ইতিবৃত্ত

প্রকাশিত: ১৪:০৩, ২৩ মার্চ ২০২২  

নৈসর্গিক সেঞ্চুরিয়ানে 'স্বর্গের' হাওয়া গায়ে মেখে সোমবার ছুটি-বিলাসে ছিলেন তামিম ইকবালরা। এই বিলাসিতা ইতিবাচক, চার দিনে দুটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলার ধকল কাটিয়ে ওঠার বিরতি। তাতে খেলোয়াড়দের শরীর কতটা চাঙ্গা হলো জানা নেই, তবে মন সতেজ উড়ন্ত বলাকার মতোই। কারণ সেঞ্চুরিয়ানে প্রথম ওয়ানডেতে পাওয়া জয় নেশা ধরিয়েছে ক্রিকেটারদের। জোহানেসবার্গের ওয়ান্ডারার্সেও ছিল ঘোর লাগা আবেগ। যদিও পিচ পড়তে ভুল করায় জয়ের নেশায় বুঁদ হওয়া হয়নি। তাই সেঞ্চুরিয়ানে আজ শেষ ওয়ানডেতে বাজিমাত করার স্বপ্ন দেখা। দক্ষিণ আফ্রিকায় সিরিজ জয়ের এই তো সুযোগ।

পাশের দেশ জিম্বাবুয়ে সিরিজ জয় করা হয়েছে বহুবার। আজ জিতলে ক্রিকেট ইতিহাসে লেখা হবে বাংলাদেশের 'আফ্রিকা' বিজয়ের ইতিবৃত্ত।
এই রোমাঞ্চের টানেই হয়তো অসুস্থ পরিবারের কাছে না ফিরে শেষ ওয়ানডে খেলতে সেঞ্চুরিয়ানে থেকে গেছেন সাকিব আল হাসান। দুই দিন আগে টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজনের দেওয়া ভিডিও বার্তায় যেটা ছিল স্পষ্ট, 'সিরিজ জিতেই দেশে ফিরতে চান সাকিব।' যে দলের সেরা তারকা মানসিক চাপ উপেক্ষা করে সিরিজ জিততে .উন্মুখ সেখানে বাকিরা যে মরিয়া হয়ে খেলবেন কোনো সন্দেহ নেই। সন্দেহ নেই সেঞ্চুরিয়ানকে আরও একবার প্রবাসী বাঙালিদের আনন্দ কানন বানাতে চাইবে টাইগার বাহিনী।

একদিনের ক্রিকেটে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জয়ের অতীত অভিজ্ঞতা ছিল দেশেও নিরপেক্ষ ভেন্যুতে। ২০০৭ সালে উইন্ডিজ বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে প্রোটিয়াদের হারিয়ে চমক সৃষ্টি করেছিলেন হাবিবুল বাশাররা। ২০১৫ সালে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে পাওয়া জয়টি ছিল দ্বিপক্ষীয় সিরিজে। ২০১৯ সালে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে পাওয়া জয়ের ছবি চোখে ভাসে আজও। প্রোটিয়াদের বিপক্ষে জয়ের বৃত্তপূরণে বাকি ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার মাঠে জেতা। সেটাও পাওয়া গেছে ১৮ নভেম্বর। চক্র পূরণে স্বপ্নের পরিধিও বেড়ে গেছে খানিকটা। সিরিজ জিততে পারলে যেটা নতুনত্ব পাবে। তামিম ইকবালের বিশ্বাস সেঞ্চুরিয়ানে আনন্দের উপলক্ষ দিতে পারবেন, 'নিঃসন্দেহে শেষ ম্যাচটি জয়ের জন্য খেলতে নামব। ওরাও তাই করবে। সেক্ষেত্রে জিততে হলে প্রতিটি বিভাগে ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে আমাদের। ব্যাটিং বা বোলিং যেটাই করি, শুরুটা ভালো হতে হবে। রাবাদা ওদের মূল বোলার। ওকে দেখে খেলতে পারলে এবং শুরুতে উইকেট না দিলে ভালো কিছু হবে আশা করি।'

বাংলাদেশের ওয়ানডে দলটা বেশ পরিণত। আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে বোলিং এবং ব্যাটিং দুই বিভাগেই দারুণ ভারসাম্য। তাসকিন আহমেদ, মুস্তাফিজুর রহমান ও শরিফুল ইসলামকে নিয়ে জমাট পেস বোলিং ইউনিট। দুই স্পিনার সাকিব ও মেহেদী হাসান মিরাজ ভালো করছেন। টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন তো বোলিং ইউনিটকে প্রোটিয়াদের বোলিং ইউনিটের চেয়ে এগিয়ে রাখছেন, 'আমি বিশ্বাস করি, আমাদের বোলিং শক্তি ওদের চেয়ে বেশি। যেহেতু একটা ছন্দে পেয়েছি, চেষ্টা করতে হবে সেরাটা দিয়ে। সিরিজ ১-১ সমতায় রয়েছে, সেটাকে ২-১ করতে পারলে বেশ হয়।'

বিশ্বকাপের সুপার লিগের সিরিজ এটি। প্রতি ম্যাচ জয়ে ১০টি করে পয়েন্ট যোগ হয় নামের পাশে। এই সিরিজ থেকে এখন পর্যন্ত দুই দলই ১০ পয়েন্ট করে পেয়েছে। আজ যে দল জিতবে পয়েন্ট টেবিল সমৃদ্ধ করার পাশাপাশি ট্রফিও পাবে তারা। ১১০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে থাকা বাংলাদেশের ২০২৩ সালে অনুষ্ঠেয় ভারত বিশ্বকাপে খেলা একপ্রকার নিশ্চিত হলেও সেটাকে শক্ত ভিত দিতে পারে আরও ১০টি পয়েন্ট। সেই সঙ্গে বিদেশ থেকে ট্রফি বয়ে আনার আনন্দ। আর সুবর্ণ এই সুযোগ কাজে লাগাতে একতাবদ্ধ টিম বাংলাদেশ। কথায় আছে, শেষ ভালো তো সব ভালো। দক্ষিণ আফ্রিকায় ওয়ানডে সিরিজের শেষটা ভালো করতে লিটন কুমার দাস, সাকিব, ইয়াসির রাব্বি, আফিফদের ব্যাট হয়ে উঠুক রানপ্রসবা। তাসকিন, শরিফুল, মুস্তাফিজরা হাত থেকে বেরোক বল গোলা। যেমন তারা করেছিলেন ১৮ মার্চ সেঞ্চুরিয়ানে। প্রবাসে প্রবাসীরা যেমন নেচেছিলেন বিজয় উল্লাসে। তামিমরা কি আজও সে উপলক্ষ এনে দেবেন? এই উত্তরের অপেক্ষায় ক্রিকেটপ্রেমী দেশের ষোলো কোটি মানুষ।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়